মমিনুলের চুরির নেপথ্যে মাদক নেশা! মাসে লাগে ৩৬ হাজার টাকা » Rangpur Live মমিনুলের চুরির নেপথ্যে মাদক নেশা! মাসে লাগে ৩৬ হাজার টাকা » Rangpur Live
  1. admin@rangpurlive.news : admin :
  2. aglovelu@gmail.com : Ag Lovelu : Ag Lovelu
  3. hasanhasanuzzaman286@gmail.com : hasan lalmoni : hasan lalmoni
  4. hasankrum@gmail.com : rangpur newspapers : rangpur newspapers
  5. Motiar@gmail.com : Rangpur News : Rangpur News
  6. jmnayon4@gmail.com : J M Ali Nayon : J M Ali Nayon
  7. arsadalom074@gmail.com : Nilphamari News : Nilphamari News
  8. onbusinesstouch@gmail.com : Rangpur protidin : Rangpur protidin
  9. Talatmahamudruhan@gmail.com : তালাত মাহামুদ : তালাত মাহামুদ
  10. sylhetlive1@gmail.com : rangpurlivebdgg rangpurlivebdhk : rangpurlivebdgg rangpurlivebdhk
  11. zulfikarali31@yahoo.com : Sub Editor : Sub Editor
July 3, 2020, 6:51 pm
বিজ্ঞপ্তি :
এতোদ্বারা রংপুর বিভাগের সকলের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, করোনা ভাইরাস রোধে আপনারা ঘরের ভিতর হোম কোয়ারেন্টাইন এ থাকুন, সুস্থ থাকুন আপনার পরিবার নিয়ে... ধন্যবাদান্তে রংপুর লাইভ।
ব্রেকিং নিউজ
উলিপুরে টি-বাঁধ বিলীনের পথে জরুরী প্রকল্পের নামে ভূগর্ভস্থ বালু উত্তোলন ভূরুঙ্গামারীতে নতুন করে এক জন করোনায় আক্রান্ত কুড়িগ্রামে ভাইয়ের  সঙ্গে গোসল করতে নেমে শিশুর মৃত্যু  উলিপুরে বন্যা দূর্গতদের ত্রাণ বিতরণ জুন ফাইনালের ফাঁদে আটকা পড়েছে মরিচের দাম স্বাভাবিক রাখতে ভারত থেকে মরিচ আমদানি শুরু পানিতে টলোমলো খাচ্ছে, তিন ভাইয়ের স্বপ্ন! কুড়িগ্রাম জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি রাজুর নের্তৃত্বে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালিত ফুলবাড়ীতে দলিল লেখক সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত বীরগঞ্জে রাস্তা যেন ধান -খড় শুকানোর চাতাল! উলিপুরে কিন্ডারগার্টেন এর পরিচালক রওশন হত্যা না আত্মহত্যাঃ জনমনে প্রশ্ন

মমিনুলের চুরির নেপথ্যে মাদক নেশা! মাসে লাগে ৩৬ হাজার টাকা

  • প্রকাশের সময় Saturday, June 20, 2020
  • 497 প্রকাশের সময়
খবরটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  

আসাদুল ইসলাম সবুজ, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: মাদক নেশায় বুথ কে এই মমিনুল (১৮), যার চুরির নেপথ্যে মাদক নেশা। প্রতি মাসে লাগে ৩৬ হাজার টাকা। নেশার কারণে স্ত্রী ছেড়ে চলে গেলও মাদক নেশা ছাড়তে রাজি নন মমিনুল। বিভিন্ন অপরাধমুলক কর্মকান্ডে জড়িত মমিনুল এর বিরুদ্ধে একাধিক মামলাও আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।
অনুসন্ধানচালিয়ে জানা গেছে, প্রায় ১৫ বছর পূর্বে লালমনিরহাট রেলওয়ে ষ্টেশনে বসবাসকারী গোলাপী বেওয়া মমিনুলকে দত্তক নেন। মমিনুলের বাবার নাম নুর মোহম্মদ। তখন মমিনুলের বয়স ছিল ৩ বছর। ষ্টেশন এলাকায় ঘোরাফেরা করে বড় হন মমিনুল। বেশ কয়েক বছর আগে পৌরসভাধীন চাঁদনী বাজার সাপটানা-১ আবাসনে পালিত মাসহ বসবাস করেন। স্কুলে যাওয়ার সুযোগ না হলেও ষ্টেশনে থাকতে গাঁজা সেবন শুরু করেন মমিনুল। আবাসন এসে ইয়াবা, হিরোইন ও ট্যাবলেট নেশায় আসক্ত হন। তার কোন কাজ কর্ম নেই। এরপর প্রায় ১৫ বছর বয়সে মমিনুলের বাল্য বিয়ে করেন সদর উপজেলার মহেন্দ্রনগর ইউনিয়নের নিজপাড়া গ্রামে। বিয়ের পর স্ত্রীকে তার বাবার বাড়ি থেকে টাকা আনার জন্য চাপ দেয় ইয়াবা, হিরোইন, গাঁজা ও ট্যাবলেট আসক্ত মমিনুল। কয়েক দফায় কিছু টাকা বাবার কাছ থেকে এনে স্বামীর হাতে তুলে দেন স্ত্রী। ওই টাকায় মাদক সেবন করে তার স্বামী। এভাবেই দিন দিন টাকার চাহিদা বাড়তে থাকে মমিনুলের। স্ত্রী একপর্যায়ে স্বামীকে জানিয়ে দেন- আমার বাবা গরীব, বাবার কাছ থেকে আর টাকা আনতে পারবেন না। এতেই ঘটে বিপত্তি। টাকার অভাবে মাদক সেবন করতে না পেরে স্ত্রীকে প্রতিদিনেই নির্যাতন করেন। তার নির্যাতন সইতে না পেরে স্ত্রী মমিনুলকে ছেড়ে চলে যান স্ত্রী। স্ত্রী চলে যাওয়ার পর মমিনুল মাদকের টাকা জোগার করতে শুধু এক দুটি অপরাধই নয়, ছিনতাই ও চুরি অপরাধে গ্রেফতার হন। মমিনুলের ছিনতাই ও চুরির নেপথ্যের অন্যতম কারণ মাদক নেশা। ইতিমধ্যে বিভিন্ন অপরাধমুলক কর্মকান্ডে জড়িত মমিনুল এর বিরুদ্ধে একাধিক মামলা আদালতে বিচারাধীন রয়েছে বলে জানা গেছে। যার মামলা নং- জিআর ৭০৮/১৯। আরএমবি’র মামলা নং ৩/১৯, তাং ১২/০৭/১৯। এছাড়াও মাদক সেবনের দ্বায়ে ফাঁড়ি পুলিশের হাতে ২ বার আটক হন ও সাপটানা-১ আবাসন আশ্রয়নে চুরি ও মাদক সেবনের দায়ে ২ বার পুলিশকে ধরিয়ে দেওয়া হয়।
এ বিষয়ে বিডিআরহাট এলাকায় বসবাসকারী সাংবাদিক এসকে সাহেদ বলেন, আমিও মমিনুলের চুরির বিচার করেছি। সে বিডিআরহাট খোলার দোকানদ্বার আনোয়ারুল হকের গলামালের দোকানের চুরি করতে গিয়ে হাতে নাতে আটক হলে স্থানীয় ভাবে শালিশ বৈঠক করে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।
এছাড়াও চাঁদনী বাজার এলাকার একজন সমাজসেবক ও জাসদ নেতা বলেন, মমিনুল একজন কুখ্যাত চোর। গত রমজান/২০ মাসে গোশালা বাজারে বাইসাইকেল চুরি, চাঁদনী বাজারে কয়েল চুরিসহ তার ২/৩টি বিচার সালিশ আমি করেছি। মাদকের কারণেই সে চুরি ও ছিনতাইয়ের সাড়ে দীর্ঘদিন ধরে জড়িত রয়েছে।
সাপটানা-১ আবাসন আশ্রয়ন প্রকল্প সমবায় সমিতির সভাপতি মোঃ রাশেদ ইসলাম বলেন, প্রায় ২/৩ বছর ধরে সে গাঁজা ও ইয়াবাসহ ট্যাবলেট সেবন করে। প্রতিদিন ৮/১০ টি ট্যাবলেট লাগে তারা। যার মুল্য ১ হাজার থেকে ১২শত টাকা। প্রতি মাসে লাগে ৩৬ হাজার টাকা। এসব টাকা শ্রমিকের কাজ করে জোগার করা তার পক্ষে অসম্ভব। এ জন্য সহযোগীদের সঙ্গে বিভিন্ন স্থানে চুরি করতে। মমিনুলকে আবাসন এলাকায় চুরি ও মাদক সেবনের দায়ে ২ বার পুলিশে ধরি দেয়া হয়েছে। এছাড়াও শহরের অনেক স্থানে চুরির দায়ে মমিনুল জনতার হাতে ধরা পরায় গণধোলাই দিয়ে ছেড়ে দেন।
এ ব্যাপারে মমিনুলের সাথে কথা হলে মমিনুল নেশার কথা স্বীকার করে বলেন, নেশার টাকা জোগার করতে মাঝে মধ্যে চুরি ও ছিনতাই করতাম। মিশন মোড়ের ঘটনার পর থেকে আর চুরি করি না, এখন সবসময় বাড়িতে থাকি।
মমিনুলের পালিত মা গোলাপী বলেন, আমার ছেলেটাকে ভাল করার অনেক চেষ্ঠা করেছি। কিন্তু ভাল করতে পারি নাই। তার চিকিৎসার দরকার, কে করবে তার চিকিৎসা। মাদক ছাড়াতে পারলে সব চুরি ও ছিনতাই ছেড়ে দিতো মমিনুল।

Facebook Comments

খবরটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই জেলার আরও খবর পড়ুন
© All rights reserved © (2016-2019) Rangpur Live.News The website host& design by- Rebnal Host
Theme Customized By BreakingNews