দুই ব্যাংকে ঝাড়ুর লাঠিতে জাতীয় পতাকা উত্তোলন!

রংপুর লাইভ ডেস্কঃ

মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে দুই ব্যাংকে ঝাড়ুর লাঠিতে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এর মধ্যে টাঙ্গাইলের বাসাইলে কৃষি ব্যাংক এবং যশোরের মনিরামপুরে সোনালী ব্যাংকে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় সংশ্লিষ্ট এক প্রহরীকে ১০ দিনের কারাদন্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। আমাদের টাঙ্গাইলের স্টাফ রিপোর্টার জানান, বাসাইলে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে কৃষি ব্যাংকে জাতীয় পতাকা ঝাড়ুর একটি লাঠির টাঙানোর অপরাধে ব্যাংকের নিরাপত্তা প্রহরী সুলতান আহমেদকে (৫৪) ১০ দিনের কারাদন্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। বুধবার বাসাইল উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শামছুন নাহান স্বপ্নার নেতৃত্বাধীন ভ্রাম্যমাণ আদালত ওই দন্ড প্রদান করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শামছুন নাহার স্বপ্না জানান, মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে সব সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা টানানোর নির্দেশনা ছিল। সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক বাসাইল শাখায় জাতীয় পতাকাকে একটি ঝাড়ুর লাঠির সঙ্গে টানিয়ে রাখা হয়। জাতীয় পতাকাকে অবমাননার দায়ে ব্যাংকের নিরাপত্তা প্রহরী সুলতান আহমেদকে ১০ দিনের কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে।

 

তিনি আরও জানান, ব্যাংকের ওই শাখার ম্যানেজারসহ সব কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে চিঠি পাঠানো হবে।

মনিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি জানান, যশোরের মনিরামপুর সোনালী ব্যাংক শাখায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয় একটি ঝাড়ুর লাঠিতে বেঁধে। বিষয়টি স্থানীয়দের নজরে পড়লে খবর পেয়ে যান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ প্রশাসনের অনেকেই। তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে পৌঁছে যান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ জাকির হাসান, সহকারী (ভূমি) কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার দেবনাথ এবং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম। এরই মধ্যে ব্যাংকের সামনে টানানো জাতীয় পতাকার ওই দৃশ্যটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।

জানা যায়, বিজয় দিবস পালন উপলক্ষে শাখা ব্যবস্থাপক ফারুকুজ্জামান সকালে ব্যাংকে যাননি। ব্যাংক শাখার দারোয়ানের (আনছার সদস্য) ওপর দায়িত্ব দেন শাখা ব্যবস্থাপক। নির্বাহী কর্মকর্তাসহ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের মোবাইল ফোনে জানানোর পর তিনি ঘটনাস্থলে যান। এরই মধ্যে জাতীয় পতাকা অবমাননার জন্য যুবলীগ এবং ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা উপজেলা প্রশাসনে দাবি তোলেন শাখা ব্যবস্থাপকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য।

 

এ ব্যাপারে মনিরামপুর সোনালী ব্যাংক শাখা ব্যবস্থাপক ফারুকুজ্জামান বলেন, পতাকাটি বাঁধা ওটি ঝাড়ুর হাতল না। বিষয়টি ভিন্নভাবে নেওয়া হচ্ছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ জাকির হাসান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ব্যাংক শাখাটির কর্মকর্তাগণ বিভিন্নভাবে চেষ্টা করছেন সাধারণ ক্ষমা করার জন্য। তবে ১৬ই ডিসেম্বরের বিভিন্ন কর্মসূচি নিয়ে ব্যস্ত থাকায় এ ব্যাপারে কার্যতো ব্যবস্থা নেয়া সম্ভব হয়নি। বৃহস্পতিবার ব্যাংক ব্যবস্থাপকের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বিষয়টি জানানো হয়েছে।

শেয়ার করুন-

Leave a Reply