উলিপুরে ডিবি পুলিশের পরিচয়ে ছিনতাইয়ের অভিযোগ ছাত্রলীগ ও মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতাদের বিরুদ্ধে, আটক তিন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

কুড়িগ্রামের উলিপুরে প্রশাসন ও ডিবি পুলিশের পরিচয় দিয়ে ব্যবসায়ির দুই লাখ টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগ এবং মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতাদের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে, বৃহস্পতিবার (১১ ফেব্রুয়ারী) গভীর রাতে পৌরসভার হাজীপাড়া এলাকায়। ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে তিন জনকে আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় ওই ব্যবসায়ী বাদী হয়ে ছয় জনের বিরুদ্ধে শুক্রবার (১২ ফেব্রুয়ারী) বিকালে থানায় মামলা করেছেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, রংপুর কোতয়ালী থানার কামাল কাছনা গ্রামের সম্ভুনাথ বণিকের ছেলে ওয়েষ্ট পেপার ব্যবসায়ি প্রদীপ বণিক (৩৫) বৃহস্পতিবার রাতে তার একজন কর্মচারীসহ মোটর সাইকেল যোগে ব্যবসায়িক কাজে রংপুর থেকে উলিপুর উপজেলার বজরা বাজারের উদ্দেশ্যে যাচ্ছিলেন।

পথিমধ্যে রাত ১১টার দিকে উলিপুর পৌরসভার রামধাস ধনিরাম হাজীপাড়া এলাকায় পৌছিলে উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নাঈমুল ইসলাম নাঈম (২২) ও উপজেলা মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সাধারণ সম্পাদক ওসমান গনি সরদার রতন (২৪)সহ ৬জন যুবক ওই ব্যবসায়ির মোটর সাইকেলের গতিরোধ করেন। এরপর তারা নিজেদেরকে প্রশাসন ও ডিবি পুলিশের পরিচয় দিয়ে অবৈধ মালামাল রাখার অভিযোগ তুলে ওই ব্যবসায়ি এবং কর্মচারীর শরীর তল্লাশি করেন। এ সময় ব্যবসায়িকে মারপিটের ভয় দেখিয়ে তার ব্যাগে থাকা দুই লাখ টাকা জোর পূর্বক ছিনিয়ে নেয়ার সময় ব্যবসায়ির আত্মচিৎকারে এলাকার লোকজন এগিয়ে আসলে তারা টাকা নিয়ে পালিয়ে যায়। এ সময় স্থানীয় লোকজন তাদেরকে চিনে ফেলে।
এর কিছু সময় পর ছিনতাইকারীরা ঘটনাস্থলে ফেলে যাওয়া তাদের একটি মোটর সাইকেল নিতে আসলে এলাকাবাসী দুইজনকে আটক করে পুলিশে দেন। পরে শুক্রবার বিকালে পুলিশ অভিযান চালিয়ে আরও একজনকে আটক করেন। আটকৃতরা হলেন, পৌরসভার নারিকেলবাড়ি গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে আহসান হাবিব বাবু (২৪), আব্দুল হামিদের ছেলে সাদেকুর রহমান দুলু (২৮) ও পশ্চিম কালুডাঙ্গা গ্রামের ছাবেদ আলীর ছেলে শাহিন মিয়া (২৫)। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত পলাতক আসামীরা হলেন, উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নাঈমুল ইসলাম নাঈম (২২) ও উপজেলা মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সাধারণ সম্পাদক ওসমান গনি সরদার রতন (২৪) ও কর্মী তৌফিক আলম চৌধুরী (২২)। এ ঘটনায় ব্যবসায়ি প্রদীপ বণিক বাদী হয়ে ছয় জনকে আসামী করে শুক্রবার (১২ ফেব্রুয়ারী) বিকালে থানায় মামলা দায়ের করেন (মামলা নং-১৩)।

এ বিষয়ে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাকিবুল ইসলাম রুবেল বলেন, ছিনতাইয়ের ঘটনা শুনেছি। অপরাধি যেই হোক তাদের শাস্তি হওয়া উচিত, ব্যক্তির দায় সংগঠন নিবে না। নাঈমের বিষয়টি তদন্ত করে সঠিক প্রমান হলে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ ইমতিয়াজ কবীর জানান, ছিনতাইয়ের ঘটনায় ছয়জনের বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে মামলা দায়ের হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত তিনজনকে শুক্রবার বিকালে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়। অন্যান্য আসামীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

 

সূত্রঃ ইনকিলাব

শেয়ার করুন-

Leave a Reply