ভুল রান্নার কারণে খাবারের সঠিক পুষ্টি হারাচ্ছে না তো?

সুস্থ থাকার জন্যই সবাই পুষ্টিকর খাবার খেয়ে থাকেন। জানেন কি, নিজের অজান্তেই আপনার ভুল পদ্ধতিতে রান্না করা খাবারের সঠিক পুষ্টি থেকে আপনি বঞ্চিত হচ্ছেন। সেই সঙ্গে পরিবারকেও বঞ্চিত করছেন। শুধু তাই নয়, ভুল পদ্ধতির রান্না আপনার স্বাস্থ্যকর খাবারকে নিমিষেই অস্বাস্থ্যকর করে তুলতে পারে।

মূলত সবজি কাটা থেকে শুরু করে রান্না পর্যন্ত না বুঝেই অভ্যাসবশত এসব ভুল আমরা করে ফেলি।  চলুন এবার জেনে নেয়া যাক রান্নার ভুল ও এর প্রতিকারের উপায়গুলো-

>> সবজির খোসা ছাড়িয়ে ও ছোট টুকরা করে কেটে পানিতে ভিজিয়ে রাখলে প্রায় ৪০ শতাংশ পুষ্টিগুণ হারিয়ে যায়। তাই খোসাসহ পানিতে ধুয়ে বড় টুকরো করে কাটুন সবজি। পুষ্টিগুণ অনেকটুকুই অক্ষুণ্ণ থাকবে।

>> আমরা অনেকেই মনে করি গরম কড়াইতে তেল দেয়ার পর যতক্ষণ না ধোঁয়া ওঠে ততক্ষণ মাছ বা সবজি দিতে নেই। কারণ তাহলে রান্নায় কাঁচা তেলের গন্ধ থেকে যায়। ধারণাটি ভুল। প্রতিটি তেলের নির্দিষ্ট স্মোক পয়েন্ট থাকে, অর্থাৎ যে তাপমাত্রায় তেল ভেঙে গিয়ে ধোঁয়া ওঠে। এই ধোঁয়ার সঙ্গে উড়ে যায় উপকারী ফ্যাটি অ্যাসিড ও ভিটামিনও। তৈরি হতে শুরু করে ফ্রি-র‍্যাডিক্যালস নামের ক্ষতিকর উপাদান। হাই কোলেস্টেরল, হৃদরোগ, স্ট্রোক, অ্যালঝাইমার, ক্যান্সার ইত্যাদি রোগের মূলে রয়েছে এটি। ধোঁয়ার মাঝে রান্না করলেও শরীরে ঢোকে ফ্রি-র‍্যাডিক্যালস। কাজেই কড়াই গরম করে তারপর তেল দিন। ধোঁয়া বের হওয়ার আগেই ফোড়ন, মাছ বা সবজি দিয়ে ঢেকে দিন। ক্ষতিকর ধোঁয়ার হাত থেকে শরীর বাঁচবে, পুষ্টিও থাকবে অটুট।

>> ছাঁকা তেলে ভাজলে খাবারের ভিটামিন ও প্রোটিনের পরিমাণ কমে যায়। বাড়ে ক্ষতিকর ট্রান্স ফ্যাট, ওজন, অপুষ্টি এবং হাই প্রেশার-কোলেস্টেরল ও স্ট্রোকের আশঙ্কা।

>> নারকেল তেলের স্মোক পয়েন্ট বেশি। তাই অনেকক্ষণ উচ্চতাপে গরম করলেও তা মোটামুটি অবিকৃত থাকে ও বিপদ কম হয়।

>> কড়াইয়ে অল্প তেল দিয়ে খাবার ঢেকে ভাজুন। পুষ্টিগুণ অনেকটুকুই অক্ষুণ্ণ থেকে যাবে।

শেয়ার করুন-

Leave a Reply